বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অংশ বাউল গান-ভাবখালীতে চেয়ারম্যান শাহানশাহ

প্রকাশিত: ৩:৩৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২

মোঃ মাইন উদ্দিন উজ্জ্বল।।

ত্রিশাল উপজেলার বইলর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও তরুণ রাজনীতিবিদ খন্দকার মশিহুর রহমান শাহানশাহ বলেছেন-বাংলার বাউল গান এখন বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অংশ। এ স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেসকো।

তিনি বলেন-বিশ্বের ৪৩টি বাক ও বিমূর্ত ঐতিহ্য চিহ্নিত করতে গিয়ে ইউনেসকো বাংলাদেশের বাউল গানকে অসাধারণ সৃষ্টি বলে আখ্যা দিয়ে একে বিশ্ব সভ্যতার সম্পদ বলে ঘোষণা দিয়েছে। বাউল গানকে ‘ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ’-এর তালিকাভুক্ত করে ইউনেসকো সদর দপ্তর থেকে ২০০৫ সালের ২৭ নভেম্বর এ ঘোষণা দেওয়া হয়। বিশ্ব সংস্থার এই স্বীকৃতির ফলে বাউল গান নিয়ে দেশ-বিদেশে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক আগ্রহ।

বুধবার (২৩শে ফেব্রুয়ারী) রাতে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ভাবখালী ইউনিয়নের দড়ি ভাবখালী এলাকায় আব্দুল হাই ভান্ডারীর বাড়ীতে আঞ্জুমানে মোত্তাবেয়ীনে গাউছে মাইজভান্ডারি দড়ি ভাবখালী শাখা আয়োজিত বাউল গানের অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখার সময় এসব কথা বলেন।

ভাবখালী ইউনিয়নের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রমজান আলীর সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ও সাংবাদিক আরিফ রববানীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহিদ,বৈলর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মজনু মিয়া,শাহজাহান, ভাবখালী ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আব্দুল বারী,কামাল উদ্দীন প্রমুখ

এসময় বৈলর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার মশিহুর রহমান শাহানশাহ আরো বলেন-বাউল গান বাংলার ঐতিহ্যবাহী লোকায়ত সংগীতের একটি অনন্য ধারা। এটি বাউল সম্প্রদায়ের নিজস্ব সাধনগীত। আবহমান বাংলার প্রকৃতি, মাটি আর মানুষের জীবন জিজ্ঞাসা একাত্ম হয়ে ফুটে ওঠে বাউল গানে। আরো ফুটে ওঠে সাম্য ও মানবতার বাণী। এ ধারাটি পুষ্ট হয়েছে পঞ্চদশ শতাব্দীর তান্ত্রিক বৌদ্ধ ধর্মের ভাব, রাধাকৃষ্ণবাদ, বৈষ্ণব সহজিয়া তত্ত্ব ও সুফি দর্শনের প্রভাবে। কোনো কোনো ইতিহাসবিদের মতে, বাংলাদেশে বাউল মতের উদ্ভব সতের শতকে। এ মতের প্রবর্তক হলেন আউল চাঁদ ও মাধব বিবি।

নিজ দেহের মধ্যে ঈশ্বরকে পাওয়ার তীব্র ব্যাকুলতা থেকে বাউল ধারার সৃষ্টি। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য তিনি আয়োজক বৃন্দদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। পরে তিনি ভাবখালী নারায়নপুর দক্ষিণ পাড়া গাজীর কালু বয়াতী দুলাল ফকিরের বাড়ীতে ২২তম পবিত্র ওরশ মাহফিলে উপস্থিত হয়ে বক্তৃতা করেন।